বারভিডা নেতৃবৃন্দ ও শিল্প মন্ত্রণালয় কর্মকর্তাদের মতবিনিময় সভা, বিষয় প্রস্তাবিত অটোমোবাইল শিল্প উন্নয়ন নীতিমালা ২০২০

প্রস্তাবিত অটোমোবাইল শিল্প উন্নয়ন নীতিমালা ২০২০ নিয়ে বারভিডা নেতৃবৃন্দ ও শিল্প মন্ত্রণালয় কর্মকর্তাদের মতবিনিময় সভা l শিল্প মন্ত্রণালয় কর্তৃক প্রণীত অটোমোবাইল শিল্প উন্নয়ন নীতিমালা ২০২০ এর খসড়া নিয়ে বারভিডা নেতৃবৃন্দ ১৩ সেপ্টেম্বর ২০২০ তারিখে শিল্প মন্ত্রণালয়ের উর্ধ্বতন কর্মকর্তাবৃন্দের সাথে এক মতবিনিময় সভায় মিলিত হন।


বারভিডা প্রেসিডেন্ট জনাব আবদুল হক এর নেতৃত্বে এসোসিয়েশনের কার্যনির্বাহী পরিষদ সদস্যবৃন্দ এবং সংগঠনের প্রাক্তন প্রেসিডেন্টবৃন্দ সভায় অংশ নেন। শিল্প মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব বেগম পরাগ এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এ সভায় নীতিমালার ড্রাফটিং কমিটির কর্মকর্তাবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।


সভায় বারভিডা প্রেসিডেন্ট প্রস্তাবিত নীতিমালার উপর বারভিডার বিশদ পর্যবেক্ষণ তুলে ধরেন এবং বাংলাদেশের অভ্যন্তরীণ গাড়ির বাজার, দেশের পরিবহন ও মোটরযান খাতে বারভিডার অবদান, ক্রেতাদের পছন্দ/চাহিদা এবং দেশে গাড়ি নির্মাণ শিল্পের সম্ভাবনা বিষয়ে সভাকে বলিষ্ঠভাবে অবহিত করেন। বারভিডা সেক্রেটারি জেনারেল জনাব মোহাম্মদ শহীদুল ইসলাম দেশে রিকন্ডিশন্ড গাড়ি আমদানি খাতের অবদান এবং এ খাতটি টিকিয়ে রাখতে প্রয়োজনীয় সহায়তার বিষয়ে বক্তব্য রাখেন। এসোসিয়েশনের প্রাক্তন প্রেসিডেন্টবৃন্দও দেশের অর্থনীতিতে বারভিডার নানা অবদান বিষয়ে বক্তব্য রাখেন।

বারভিডা নেতৃবৃন্দ সভায় মত প্রকাশ করেন যে, দেশের উন্নয়নের স্বার্থে বারভিডা গাড়ি নির্মাণ শিল্প স্থাপনের বিপক্ষে নয়, তবে দেশের অর্থনীতিতে গুরুত্বপূর্ণ অবদান পালনকারী রিকন্ডিশন্ড গাড়ি আমদানি পর্যায়ক্রমে বন্ধ করে দেয়ার পরিকল্পনা সম্পূর্ণ অবাস্তব ও অগ্রহণযোগ্য ; আর পৃথিবীর কোন দেশেই এরকম কোন দৃষ্টান্ত নেই। বারভিডার উপস্থাপনা এবং বক্তব্যের প্রেক্ষিতে সভার সভাপতিসহ মন্ত্রণালয়ের ড্রাফটিং কমিটি বিষয়গুলো নতুন করে পর্যবেক্ষণ করবে বলে আশা করা হচ্ছে। 


শিল্প মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব বেগম পরাগ তাঁর বক্তব্যে বলেন যে, প্রস্তাবিত নীতিমালা অনুযায়ী হঠাৎ করেই রিকন্ডিশন্ড গাড়ি আমদানি বন্ধ করে দেয়া হবে না। বারভিডা নেতৃবৃন্দের সাথে আলোচনা করেই নীতিমালাটি চুড়ান্ত করা হবে বলে তিনি আশ^স্ত করেন।  


সভার আলোচনার প্রেক্ষিতে সভার সভাপতি আগামী ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২০ তারিখের মধ্যে খসড়া নীতিমালাটির বিষয়ে বারভিডার বিস্তারিত বক্তব্য মন্ত্রণালয়ে পাঠাতে বলেন। এছাড়াও প্রস্তাবিত নীতিমালাটিতেও দেশের বিদ্যমান রিকন্ডিশন্ড গাড়ি আমদানি বাণিজ্য বিষয়ে সিদ্ধান্ত গ্রহণের জন্য মন্ত্রণালয়ের দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তার সাথে সময়ে সময়ে আলোচনার জন্য বারভিডা নেতৃবৃন্দের সমন্বয়ে একটি কমিটি গঠনের সিদ্ধান্ত গৃহিত হয়। 

বারভিডা প্রাক্তন প্রেসিডেন্ট জনাব মোঃ আনোয়ার হোসেন, জনাব আব্দুল মান্নান চৌধুরী খসরু, জনাব মোঃ হাবিব উল্লাহ ডন ও জনাব মোঃ আব্দুল হামিদ শরীফ সভায় অংশ নেন। 


বারভিডা ভাইস প্রেসিডেন্ট ২ জনাব মোহাঃ সাইফুল ইসলাম (স¯্রাট), ভাইস প্রেসিডেন্ট ৩ জনাব মোঃ জসিম উদ্দিন মিন্টু, জয়েন্ট ট্রেজারার জনাব মোঃ সাইফুল আলম, অর্গানাইজিং সেক্রেটারি জনাব খন্দকার আব্দুল মুমিন (পাপ্পু) এবং কার্যনির্বাহী সদস্য জনাব আবু হোসেন ভূইয়া (রানু), সৈয়দ জগলুল হোসেন, জনাব মোঃ জিয়াউল ইসলাম, জনাব কাউছার হামিদ, জনাব জহির উদ্দিন মোঃ বাবর চৌধুরী ও জনাব মোঃ মাহবুবার রহমান সভায় উপস্থিত ছিলেন।

Source: Barvida